আজ বৃহস্পতিবার | ১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ইং | ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ৫ই রবিউস-সানি, ১৪৪০ হিজরী| সময় : সকাল ১১:৫৮
Home > প্রিয় শরীয়তপুর > নড়িয়া > নড়িয়ায় দুধর্ষ ডাকাতি, পৌরমেয়রের ভাই সহ গ্রেফতার-২।

নড়িয়ায় দুধর্ষ ডাকাতি, পৌরমেয়রের ভাই সহ গ্রেফতার-২।

প্রকাশিত: ২৬ মে ২০১৮ সময়: ৬:১১ অপরাহ্ণ

নড়িয়া পৌরসভার লোনসিন এলাকায় দুধর্ষ ডাকাতির হওয়ার ঘটনায় নড়িয়া পৌর মেয়রের ভাইসহ ২জনকে গ্রেফতার করেছে নড়িয়া থানার পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসবাদে পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তি দিয়েছে। ডাকাতের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী খোয়া যাওয়া কিছু জিনিস ও নগদ টাকা উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় নড়িয়া থানায় মামলা হয়েছে। মেয়রের ভাই ডাকাতির ঘটনায় জড়িত জেনে এলাকায় চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। মেয়র বলছে, অপরাধী যেই হোক তার আইনের আওতায় বিচার হবে। জন্য
নড়িয়া থানা ও মামলার বিবরনে জানাগেছে, শরীয়তপুরের নড়িয়া পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের লোনসিন গ্রামের লাভলু চৌকিদার বাড়িতে ২৩ মে রাতের ৫/৬ জনের একটি দুধর্ষ ডাকাত দল ডাকাতি করতে যায়। ঐদিন বাড়ির মালিক লাভলু চৌকিদার ঢাকায় ছিলেন। এ সময় ডকাত দল ঘরের কেচি গেটের তালা ও দরজা ভেঙ্গে ঘরের ভিতরে প্রবেশ করে অস্ত্রের মুখে ঘরের ঘরের ভিতরে সবাইকে জিম্মি করে প্রায় ২ ঘন্টাব্যাপী ডাকাতি করে। ডাকাতরা আলমারী ও স্যুকেস ভেঙ্গে ৪২ ভরি স্বর্নালংকার নগদ ১ লাখ টাকা ও ৯টি মোবাইল সেট নিয়ে যায়। ডাকাতেদের ২ জনের মুখ গামছা দিয়ে বাধা ও দুজনের মুখে মার্কস পরনে ছিল। এ সময় লাভলু চৌকিদারের স্ত্রী রেখা বেগম এর চিৎকার শুনে আশে পাশের লোকজন আসলে ডাকাতরা পালিয়ে যায়। পরদিন বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকা থেকে বাড়ি এসে লাভলু চৌকিদার বাদী হয়ে অজ্ঞাত লোকজনদের আসামী করে নড়িয়া থানায় একটি মামলার দায়ের করে। মামলার সূত্র ধরে নড়িয়া থানার পুলিশ সন্দেহাতীত ভাবে নড়িয়া পৌরসভার মেয়র শহিদুল ইসলাম বাবু রাঢ়ির ভাই রাসেল রাঢ়ি ও তার সহযোগী সাখাওয়াত হোসেন দেওয়ান কে আটক করে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা পুলিশের কাছে ডাকাতির কথা স্বীকার করে। তাদের স্বীকারোক্তি মতে ডাকাতির সময় খোয়া যাওয়া মালামালের মধ্যে শুক্রবার দুপুরে ডাকাত সাখাওয়াত এর বাড়ি থেকে ১টি স্বর্নের চেইন ও নগদ ১০ হাজার টাকা উদ্ধার করেছে পুলিশ ।
মামলার বাদী মধ্য লোনসিন গ্রামের লাভলু চৌকিদার বলেন, ঘটনার সময় আমি ঢাকায় ছিলাম। খবর পেয়ে বাড়ি এসে ডাকাতির ঘটনা শুনে আমি নড়িয়া থানায় অজ্ঞাত আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছে। পুলিশ সন্দেহ করে মেয়রের ভাই রাসেল ও সাখাওয়াতকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। তাতে দুজনেই ডাকাতির কথা স্বীকার করেছে। ডাকাতের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী কিছু মালামাল উদ্ধার করেছে।
এ ব্যাপারে নড়িয়া পৌরসভার মেয়র শহিদুল ইসলাম বাবু রাঢ়ি বলেন, ডাকাতির ঘটনায় আমার ভাই কেন যেই জড়িত থাকুক তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হোক।
নড়িয়া থানার ওসি মোঃ আসলাম উদ্দিন বলেন, মধ্য লোনসিন গ্রামের লাভলু চৌকিদারের বাড়িতে তালা ভেঙ্গে ডাকাতি করে। এ ঘটনায় মামলা রুজু হওয়ার পর দুইজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে ডাকাতির কথা স্বীকার করে। ডাকাতের স্বীকারোক্তি মতে সাখাওয়াত দেওয়ানের বাড়ি থেকে কিছু মালামাল ও নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

Comments

comments

x

Check Also

শরীয়তপুরে পালং বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে, দুই কর্মচারীর মৃত্যু

শরীয়তপুর পৌর বাজারে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় দোকানে আটকা পড়ে পলাশ বৈরাগী (২৫) ...

Powered by Dragonballsuper Youtube Download animeshow